Best Bengali Poem Of Rabindranath Tagore - রবীন্দ্রনাথের কবিতা

Best Bengali Poem Of Rabindranath Tagore - রবীন্দ্রনাথের কবিতা

 
Bengali Poem Of Rabindranath Tagore - রবীন্দ্রনাথের কবিতা

Bengali Poem Of Rabindranath Tagore



    প্রেমের হাতে ধরা দেব

প্রেমের হাতে ধরা দেব  
 তাই রয়েছি বসে;  
 অনেক দেরি হয়ে গেল,  
 দোষী অনেক দোষে।  
 বিধিবিধান-বাঁধনডোরে  
 ধরতে আসে, যাই সে সরে,  
 তার লাগি যা শাস্তি নেবার  
 নেব মনের তোষে।  
 প্রেমের হাতে ধরা দেব  
 তাই রয়েছি বসে।   
  
 লোকে আমায় নিন্দা করে,  
 নিন্দা সে নয় মিছে,  
 সকল নিন্দা মাথায় ধরে  
 রব সবার নীচে।  
 শেষ হয়ে যে গেল বেলা,  
 ভাঙল বেচা-কেনার মেলা,  
 ডাকতে যারা এসেছিল  
 ফিরল তারা রোষে।  
 প্রেমের হাতে ধরা দেব  
 তাই রয়েছি বসে।  
  
====== 

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রেমের কবিতা

 জীবনে যা চিরদিন

জীবনে যা চিরদিন  
 রয়ে গেছে আভাসে  
 প্রভাতের আলোকে যা  
 ফোটে নাই প্রকাশে,  
 জীবনের শেষ দানে  
 জীবনের শেষ গানে,  
 হে দেবতা, তাই আজি  
 দিব তব সকাশে,  
 প্রভাতের আলোকে যা  
 ফোটে নাই প্রকাশে।   
  
 কথা তারে শেষ করে  
 পারে নাই বাঁধিতে,  
 গান তারে সুর দিয়ে  
 পারে নাই সাধিতে।  
 কী নিভৃতে চুপে চুপে  
 মোহন নবীনরূপে  
 নিখিল নয়ন হতে  
 ঢাকা ছিল, সখা, সে।  
 প্রভাতের আলোকে তো  
 ফোটে নাই প্রকাশে।   
  
 ভ্রমেছি তাহারে লয়ে  
 দেশে দেশে ফিরিয়া,  
 জীবনে যা ভাঙাগড়া  
 সবি তারে ঘিরিয়া।  
 সব ভাবে সব কাজে  
 আমার সবার মাঝে  
 শয়নে স্বপনে থেকে  
 তবু ছিল একা সে।  
 প্রভাতের আলোকে তো  
 ফোটে নাই প্রকাশে।   
  
 কত দিন কত লোকে  
 চেয়েছিল উহারে,  
 বৃথা ফিরে গেছে তারা  
 বাহিরের দুয়ারে  
 আর কেহ বুঝিবে না,  
 তোমা সাথে হবে চেনা  
 সেই আশা লয়ে ছিল  
 আপনারি আকাশে,  
 প্রভাতের আলোকে তো  
 ফোটে নাই প্রকাশে।  
  
====== 

Bangla Poem Of Rabindranath Tagore


     তোমার সাথে নিত্য বিরোধ
 
তোমার সাথে নিত্য বিরোধ  
 আর সহে না--  
 দিনে দিনে উঠছে জমে  
 কতই দেনা।  
 সবাই তোমায় সভার বেশে  
 প্রণাম করে গেল এসে,  
 মলিন বাসে লুকিয়ে বেড়াই  
 মান রহে না।   
  
 কী জানাব চিত্তবেদন,  
 বোবা হয়ে গেছে যে মন,  
 তোমার কাছে কোনো কথাই  
 আর কহে না।  
 ফিরায়ো না এবার তারে  
 লও গো অপমানের পারে,  
 করো তোমার চরণতলে  
 চির-কেনা।  
  
====== 



তোমায় খোঁজা শেষ হবে না মোর

তোমায় খোঁজা শেষ হবে না মোর,  
 যবে আমার জনম হবে ভোর।  
 চলে যাব নবজীবন-লোকে,  
 নূতন দেখা জাগবে আমার চোখে,  
 নবীন হয়ে নূতন সে আলোকে  
 পরব তব নবমিলন-ডোর।  
 তোমায় খোঁজা শেষ হবে না মোর।   
  
 তোমার অন্ত নাই গো অন্ত নাই,  
 বারে বারে নূতন লীলা তাই।  
 আবার তুমি জানি নে কোন্ বেশে  
 পথের মাঝে দাঁড়াবে, নাথ, হেসে,  
 আমার এ হাত ধরবে কাছে এসে,  
 লাগবে প্রাণে নূতন ভাবের ঘোর।  
 তোমায় খোঁজা শেষ হবে না মোর।  
  
====== 

আছে আমার হৃদয় আছে ভরে
আছে আমার হৃদয় আছে ভরে  
 এখন তুমি যা-খুশি তাই করো।  
 এমনি যদি বিরাজ অন্তরে  
 বাহির হতে সকলি মোর হরো।  
 সব পিপাসার যেথায় অবসান  
 সেথায় যদি পূর্ণ কর প্রাণ,  
 তাহার পরে মরুপথের মাঝে  
 উঠে রৌদ্র উঠুক খরতর।   
  
 এই যে খেলা খেলছ কত ছলে  
 এই খেলা তো আমি ভালোবাসি।  
 এক দিকেতে ভাসাও আঁখিজলে  
 আরেক দিকে জাগিয়ে তোল হাসি।  
 যখন ভাবি সব খোয়ালেম বুঝি,  
 গভীর করে পাই তাহারে খুঁজি,  
 কোলের থেকে যখন ফেল দূরে  
 বুকের মাঝে আবার তুলে ধর।  
  
====== 

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কবিতা আবৃত্তি


   একলা আমি বাহির হলেম

একলা আমি বাহির হলেম  
 তোমার অভিসারে,  
 সাথে সাথে কে চলে মোর  
 নীরব অন্ধকারে।  
 ছাড়াতে চাই অনেক করে  
 ঘুরে চলি, যাই যে সরে,  
 মনে করি আপদ গেছে,  
 আবার দেখি তারে।   
  
 ধরণী সে কাঁপিয়ে চলে--  
 বিষম চঞ্চলতা।  
 সকল কথার মধ্যে সে চায়  
 কইতে আপন কথা।  
 সে যে আমার আমি, প্রভু,  
 লজ্জা তাহার নাই যে কভু,  
 তারে নিয়ে কোন্ লাজে বা  
 যাব তোমার দ্বারে।  
  
====== 



   চাই গো আমি তোমারে চাই

চাই গো আমি তোমারে চাই  
 তোমায় আমি চাই--  
 এই কথাটি সদাই মনে  
 বলতে যেন পাই।  
 আর যা-কিছু বাসনাতে  
 ঘুরে বেড়াই দিনে রাতে  
 মিথ্যা সে-সব মিথ্যা ওগো  
 তোমায় আমি চাই।   
  
 রাত্রি যেমন লুকিয়ে রাখে  
 আলোর প্রার্থনাই--  
 তেমনি গভীর মোহের মাঝে  
 তোমায় আমি চাই।  
 শান্তিরে ঝড় যখন হানে  
 শান্তি তবু চায় সে প্রাণে,  
 তেমনি তোমায় আঘাত করি  
 তবু তোমায় চাই।  
  
====== 

Romantic Bangla Kobita Rabindranath Tagore


সুন্দর তুমি আজ এসেছিলে প্রাতে

সুন্দর, তুমি এসেছিলে আজ প্রাতে  
 অরুণ-বরণ পারিজাত লয়ে হাতে।  
 নিদ্রিত পুরী, পথিক ছিল না পথে,  
 একা চলি গেলে তোমার সোনার রথে,  
 বারেক থামিয়া মোর বাতায়নপানে  
 চেয়েছিলে তব করুণ নয়নপাতে।  
 সুন্দর, তুমি এসেছিলে আজ প্রাতে।   
  
 স্বপন আমার ভরেছিল কোন্ গন্ধে  
 ঘরের আঁধার কেঁপেছিল কী আনন্দে,  
 ধুলায় লুটানো নীরব আমার বীণা  
 বেজে উঠেছিল অনাহত কী আঘাতে।  
 কতবার আমি ভেবেছিনু উঠি-উঠি  
 আলস ত্যজিয়া পথে বাহিরাই ছুটি,  
 উঠিনু যখন তখন গিয়েছ চলে--  
 দেখা বুঝি আর হল না তোমার সাথে।  
 সুন্দর, তুমি এসেছিলে আজ প্রাতে।  


আরো পড়ুন, Birpurush Kobita (বীরপুরুষ)


 

Post a Comment

Please Select Embedded Mode To Show The Comment System.*

Previous Post Next Post