নারী তুমি তিলোত্তমা - নারী দিবসের বিশেষ লেখা | women's Day story- Nari Tumi tilottoma


বাংলা গল্প - নারী তুমি তিলোত্তমা

(এক)

কুসুম বাড়ির বড়ো মেয়ে । বাবা শয্যাশায়ী তাও প্রায় সাত বছর । মা-ও অসুস্থ । নিজের শখ শৌখিনতাকে বিসর্জন দিয়ে সাত বছর ধরে একা সংসার টানছে কুসুম । বোনকে ডাক্তার আর ভাইকে ইঞ্জিনিয়ার বানানোর জন্য অক্লান্ত পরিশ্রমে সামিল । ইচ্ছে থাকলেও অভাবের সংসারে নিজের পড়াশোনা শেষ করতে পারেনি সে। তাই ভাই বোনের মাধ্যমে নিজের স্বপ্ন পূরণ করতে চায় সে । কন্যাসন্তান হয়ে জন্মানোর অপরাধে যে বাবা তাকে একদিন মেনে নেয়নি সেই বাবা আজ সবার কাছে গর্ব করে বলে, "কুসুম আমার মা লক্ষ্মী.."

(দুই)

---" শেষে কিনা মেয়ে !!!!! বংশে বাতি দেবে কে ??" ঝাঁঝিয়ে ওঠেন বীণা দেবী ।
---" আপনি দেখবেন মা ও একদিন বংশের মুখ উজ্জ্বল করবে.." করুন সুরে বলে কন্যাসন্তানের মা অঞ্জলি ।
---" ওকে আমরা মানি না । এ মেয়ে জন্মানোর চেয়ে মরাই ভালো ।"
এক কাপড়ে সেদিন অঞ্জলি মেয়ে অনন্যাকে নিয়ে বেরিয়ে এসেছিল শ্বশুরবাড়ি থেকে । একা মানুষ করেছেন মেয়েকে ।
সেই মেয়ে আজ দেশের এক নম্বর গাইনোকলজিস্ট । দেশ- বিদেশে নাম । আজ তার বাবা ও পরিবার তাকে নিয়ে গর্ব করলেও সে বলে," আমি কেবল আমার মা-এর মেয়ে.."

(তিন)

গা-এর রং কালো হওয়ায় আজীবন সইতে হয়েছে অপমান লাঞ্ছনা । বারবার পাত্রপক্ষের কাছে প্রত্যাখ্যাত হয়ে দেবশ্রী সিদ্ধান্ত নেয় আর না । হাওড়া ব্রিজের ওপর থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করার আগের মুহূর্তে হাত ধরে বাঁচায় কমলিনী ।

কেটে গেছে দীর্ঘ এক বছর ।

---"এবছর সেরা business woman award পাচ্ছেন মিস দেবশ্রী সেন..."
প্রেক্ষাগৃহ ফেটে পড়ছে করতালিতে । দর্শকাসনের প্রথম আসনে বসে নিঃশব্দে চোখের জল ফেলেন এক গর্বিত বাবা মা ।
সেদিনের সেই কালো হেরে যাওয়া মেয়েটি আজ তার বন্ধুর অনুপ্রেরণায় দেশের বিখ্যাত গহনা ব্যবসায়ী ।

এঁরা সবাই কাল্পনিক চরিত্র হলেও এরকম হাজার হাজার কুসুম , অঞ্জলি , অনন্যা , দেবশ্রী --- ছড়িয়ে আছেন আমাদের চারপাশে । নিজ নিজ ক্ষেত্রে এঁরা সবাই সফল । এঁদের কাছে বছরের 365 দিনই "নারীদিবস"...
কারণ , নারী তুমি তিলোত্তমা ..❤️

নারী তুমি তিলোত্তমা - নারী দিবসের বিশেষ লেখা | women's Day story- Nari Tumi tilottoma নারী তুমি তিলোত্তমা - নারী দিবসের বিশেষ লেখা | women's Day story- Nari Tumi tilottoma Reviewed by Bongconnection Original Published on March 08, 2019 Rating: 5

No comments:

Powered by Blogger.